বাংলাদেশ কুরিয়ার সার্ভিস। বাংলাদেশর সেরা কুরিয়ার সার্ভিস কোনটি-easykhobor

বন্ধুরা আপনারা যারা গ্রাম গঞ্জের শহর সব বিভিন্ন জায়গায় বসবাস করে থাকেন।বাংলাদেশ কুরিয়ার সার্ভিস আজকের আর্টিকেলটি শুধু আপনাদের জন্য আপনারা অনেকেই খুঁজে থাকেন বিভিন্ন জায়গায় পণ্য delivery করতে কোন কুরিয়ার সার্ভিস গুলো সবচেয়ে ভালো আজকে সে জন্য কিছু কথা বলব আপনাদের জন্য ভালো কুরিয়ার সার্ভিস কোনটা।

বাংলাদেশ কুরিয়ার সার্ভিস চলুন জেনে নেয়া যাক পণ্য হাতে পাওয়ার জন্য কোন কুরিয়ার সার্ভিস টি সবচেয়ে ভালো। তাই আমরা আম, লিচু, কাঁঠাল, চিঠি, মানি অর্ডার সহ বিভিন্ন ধরনের সেবা দিয়ে থাকে কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ গুলো।

ভালো কুরিয়ার সার্ভিস কোনটি

বাংলাদেশে প্রায় সকল কুরিয়ার সার্ভিস গুলো ভালো তবে বেশ কিছু কুরিয়ার সার্ভিস রয়েছে যাদের সুনাম অনেক এবং তাদের নির্ভরশীলতা বেশি এর মধ্যে কিছু কুরিয়ার সার্ভিস হলোঃ এস এ পরিবহন এন্ড কুরিয়ার সার্ভিস, সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস, কন্টিনেন্টাল, কুরিয়ার সার্ভিস, জননী কুরিয়ার সার্ভিস , করতোয়া কুরিয়ার সার্ভিস, ইউএসবি কুরিয়ার সার্ভিস , আহমেদ পার্সেল এন্ড কুরিয়ার সার্ভিস, ইত্যাদি।

কন্টিনেন্টাল কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ

কন্টিনেন্টাল কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ বর্তমান তাদের মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে তাদের থানা ও জেলা, বিভাগ থেকে পণ্য পরিবহন করেন বিভিন্ন জেলায় চিঠি পত্র, আম, কাঁঠাল, আসবাবপত্র, কাপড় , ইত্যাদি কুরিয়ার সার্ভিস দিয়ে থাকে।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস (প্রাঃ) লি

বাংলাদেশের জনপ্রিয়তার রয়েছে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস। এই কুরিয়ার সার্ভিসে আপনি বিভিন্ন রকমের চিঠিপত্র মানি অর্ডার পে অর্ডারসহ পণ্য সামগ্রী পাঠাতে পারবেন। সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস এর সার্ভিস সমূহ অনেক পুরনো সেজন্য এ নির্ভরশীলতা অনেক।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস (প্রাঃ) লিমিটেড বাংলাদেশে কুরিয়ার এবং পার্সেল সেবার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং নির্ভরযোগ্য কোম্পানি।  এটি 1983 সালে যাত্রা শুরু করে। ইমামুল কবির শান্ত এই কোম্পানির চেয়ারম্যান।

ghhh

এই কুরিয়ার সার্ভিস কোম্পানির 2 মিলিয়ন+ ক্লায়েন্ট, 650+ অফিসিয়াল শাখা, 118+ দেশ আচ্ছাদিত এবং 10000+ সন্তুষ্ট ক্লায়েন্ট রয়েছে।  একটি গ্রাহক সেবা কোম্পানি হিসাবে, এটি তার গ্রাহকদের চাহিদা পূরণের সহ নির্ভরযোগ্য এবং উচ্চ মানের সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছে। সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস (প্রাঃ)  অন্যান্য বিভাগের তুলনায় সাধারণ সেবা অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ।

জেনারেল সার্ভিস ডিভিশন প্রধানত দুটি ফর্ম নিয়ে গঠিত, যেমন ডকুমেন্ট এবং নন-ডকুমেন্ট যেমন, সামান্য পার্সেল।  একটি গ্রাহক সেবা কোম্পানি হিসাবে, এটি তার গ্রাহকদের চাহিদা পূরণের সহ নির্ভরযোগ্য এবং উচ্চ মানের সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছে।

S.A এস এ পরিবহন এন্ড কুরিয়ার সার্ভিস

বর্তমানে এস এ পরিবহন আইন কুরিয়ার সার্ভিস দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশেও সার্ভিস দিয়ে থাকে। বাংলাদেশের বর্তমানে জনপ্রিয় একটি সার্ভিস হলো এস এ পরিবহন এন্ড কুরিয়ার সার্ভিস। এসএ পরিবহন কুরিয়ার সার্ভিসটি বাংলাদেশে দ্রুত ডেলিভারি সময়ের জন্য জনপ্রিয়।  এটি বাংলাদেশের অন্যান্য পার্সেল এবং

কুরিয়ারের তুলনায় গ্রাহকদের অনেক বেশি নিরাপত্তা এবং উন্নত সুবিধা প্রদান করে।  সালাহউদ্দিন আহমেদ এসএ পরিবহনের চেয়ারম্যান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক।  এসএ পরিবহন পার্সেল এবং কুরিয়ার সার্ভিসের সাহায্যে আপনি সহজেই অন্যদের কাছে পার্সেল পাঠাতে পারেবেন বা অন্যদের কাছ থেকে পার্সেল সংগ্রহ করতে পারেবেন।

সারা বাংলাদেশে এসএ পরিবহনের মোট ৮১ টি শাখা রয়েছে।  এই শাখার মাধ্যমে তারা জেলায় জেলায় সফলভাবে কুরিয়ার সুবিধা প্রদান করেছে।  ঢাকায় 19 টি, চট্টগ্রামে 26 টি, রাজশাহীতে 13 টি, সিলেটে 10 টি, খুলনায় 10 টি এবং বরিশালে 3 টি শাখা রয়েছে।  এসএ পরিবহন দেশব্যাপী কুরিয়ার সেবা প্রদান করে থাকে।

জননী এক্সপ্রেস কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ

বর্তমান সময়ে জননী কুরিয়ার সার্ভিস তাদের জনপ্রিয়তা অর্জন করে এখন পর্যন্ত তৃতীয় স্থানে রয়েছে। জননী কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ এর মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে পণ্য হাতে পেয়ে যাবেন খুব সহজেই আপনার কাছে বিভিন্ন পণ্য যেমন, চিঠি পত্র, আম , কাঁঠাল, আসবাবপত্র, কাপড় ইত্যাদি কুরিয়ার সার্ভিস দিয়ে থাকে।

জননী এক্সপ্রেস পার্সেল সার্ভিস বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় কুরিয়ার সার্ভিস।  এটি জননী গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান ।  মোঃ আবুল কাশেম সরকার জনানী গ্রুপের চেয়ারম্যান।  এই প্রতিষ্ঠানের হাসান বুক ডিপো প্রতিষ্ঠার সময় একটি নাম ছিল।  হাসান বুক ডিপো  1980 সালে প্রকাশক হিসেবে যাত্রা শুরু করে।

বর্তমানে, জনানী এক্সপ্রেস পার্সেল সার্ভিস সকল প্রয়োজনীয়তা পূরণ করে গ্রাহকদের সন্তুষ্ট করতে সক্ষম হয়েছে।  এটি একটি কার্গো এবং মালবাহী কোম্পানি এবং এটি দ্রুত এবং নিরাপদে স্থানান্তর পরিষেবাগুলির জন্য জনপ্রিয়।  এর 64 টিরও বেশি শাখা রয়েছে যা বাংলাদেশের 64 টি জেলা জুড়ে রয়েছে।

ইউএসবি এক্সপ্রেস

ইউএসবি এক্সপ্রেস বাংলাদেশের গার্হস্থ্য ও আন্তর্জাতিক সেবার জন্য সবচেয়ে পরিচিত কুরিয়ার সার্ভিসগুলির মধ্যে একটি।  তারা সারা দেশে 109 টি শাখার মাধ্যমে গ্রাহক সেবা প্রদান করে।  ইউএসবি এক্সপ্রেস ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের সহকারী প্রতিষ্ঠান। 2009 সাল থেকে ইউএস বাংলা বাংলাদেশে একটি সম্পদ উন্নয়ন সংস্থা হিসেবে কাজ করছে।

ইউএসবি এক্সপ্রেসে গ্রাহক সেবা প্রদানের জন্য সর্বশেষ প্রযুক্তি রয়েছে যা বিশেষজ্ঞ নিয়োগকর্তাদের দ্বারা পরিচালিত হয়। ইউএসবি এক্সপ্রেসের মাধ্যমে আপনি সহজেই আপনার পার্সেলগুলিকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যেতে পারেবেন।  তারা বাংলাদেশে নিরাপদ, দ্রুত এবং নির্ভরযোগ্যতার সাথে তাদের ঘরোয়া সেবা কার্যক্রম সফলভাবে পরিচালনা করছে।

এখানে 60 টিরও বেশি অফিস রয়েছে যা বাংলাদেশের সব জেলা জুড়ে।  ইউএসবি এক্সপ্রেসে 100 টিরও বেশি যানবাহন এবং 150 টি মোটরসাইকেল রয়েছে যাতে ক্লায়েন্টদের কাছে সময়মত মালামাল  পৌঁছে যায়।

ফেডএক্স বাংলাদেশ

FedEX মানুষকে সম্পৃক্ত করতে এবং বিশ্বব্যাপী পণ্য, পরিষেবা এবং ধারণার সুবিধার সাথে জীবনকে উন্নত করতে সহায়তা করে।  তাদের স্লোগান হল “একটি জড়িত বিশ্ব একটি উন্নত বিশ্ব”। FedEx Express শুরু থেকে নির্ভরযোগ্য, নিরাপদ, দ্রুত এবং অন-টাইম ডেলিভারি প্রদান করে।এটি 220 টিরও বেশি দেশে জনপ্রিয়তার সাথে পরিষেবা প্রদান করে আসছে।

FedEx একটি আন্তর্জাতিক মানের কোম্পানি যা শিল্পের বৈশ্বিক নেতা হিসাবে পরিচিত। আপনি যদি FedEx এর মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে প্রেরণ বা প্রেরণ করতে চান, তাহলে পার্সেলটি কাস্টমস দ্বারা পরিদর্শন করা আবশ্যক।  সঠিকভাবে শিপিংয়ের জন্য আপনাকে অবশ্যই শিপিং বিধিনিষেধগুলি পরীক্ষা করতে হবে, নথিটি যথাযথভাবে পূরণ করুন।  ঘোষিত মান যাচাই করতে আপনার রসিদ প্রয়োজন।

ইউনাইটেড এক্সপ্রেস বাংলাদেশ

ইউনাইটেড এক্সপ্রেস 2003 সালে ঢাকায় যাত্রা শুরু করে।  এটি বিশ্বের 220 টিরও বেশি দেশে ডেলিভারি সেবা প্রদান করে।  খুব অল্প সময়ে, এটি তার মসৃণ এবং দ্রুত পরিষেবার মাধ্যমে ক্লায়েন্টদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

ইউনাইটেড এক্সপ্রেস অফিসগুলি আপনার নথি এবং পার্সেলগুলি সঠিকভাবে প্রক্রিয়া করার জন্য অভিজ্ঞ এবং প্রশিক্ষিত কর্মীদের দ্বারা পরিচালিত হয়।  এই এক্সপ্রেস পেশাদারিত্ব এবং আশ্বাসের মাধ্যমে গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সেবা প্রদানের চেষ্টা করে।  বর্তমানে, এটি একটি আন্তর্জাতিক মানের পরিবহন পরিষেবা প্রদানকারী হওয়ার চেষ্টা করছে।

ইউনাইটেড এক্সপ্রেস তার পরিবহন সেবা প্রদান করে শুধু আন্তর্জাতিকভাবেই নয় বরং দেশীয়ভাবে শিপিং সুবিধা প্রদান করে।  ব্যবসায়িক দলিল বা প্যাকেজ যাই হোক না কেন, আপনি নিশ্চিত হতে পারেন যে আপনার মালামাল  সঠিকভাবে এবং দ্রুত তাদের গন্তব্যে পৌঁছাবে।  2-4 কর্ম দিনের মধ্যে, এটি তাদের তালিকাভুক্ত দেশগুলিতে পণ্য সরবরাহ করে যা ব্যবসার 90% এর বেশি সমন্বয় করে।

করতোয়া কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ(কেসিএস)

কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ এর মাধ্যমে আপনি আপনার মোবাইল, কম্পিউটার, ও প্রযুক্তি বিষয়ক সকল প্রকার বিভিন্ন ধরনের সেবা প্রদান করে থাকে। করতোয়া কুরিয়ার সার্ভিস এর রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জয়পুরহাট নওগাঁ বগুড়া পাবনা সিরাজগঞ্জ থেকে ঢাকায় তাদের নিজস্ব পরিবহন করে।

কারাতোয়া কুরিয়ার সার্ভিস বাংলাদেশের অন্যতম পরিচিত কুরিয়ার সার্ভিস।  গাজী মোস্তাক আহমেদ এই কোম্পানির চেয়ারম্যান।  এটির 130 টি ডেলিভারি সার্ভিস শাখা রয়েছে যা বাংলাদেশের 64 টি জেলা জুড়ে রয়েছে।  তাদের উন্নত পরিবহন সুবিধা এবং অভিজ্ঞ কর্মীদের কারণে তারা খুব অল্প সময়ে বাংলাদেশে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

কারাতোয়া কুরিয়ার সার্ভিস খুব অল্প সময়ে নিরাপত্তা, সময়মতো ডেলিভারি এবং গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট সরবরাহের জন্য তার ক্লায়েন্টদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।  এটি বাংলাদেশের অন্যান্য কুরিয়ার পরিষেবার তুলনায় গ্রাহকদের কাছে বিশ্বাসযোগ্য এবং নির্ভরযোগ্য হয়ে উঠেছে।  কারাতোয়া কুরিয়ার সার্ভিস তার নেটওয়ার্ক অনেক দ্রুত বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছে এবং এখনও দেশের সবচেয়ে বড় কুরিয়ার হিসেবে পরিচিত।

ইউনাইটেড পার্সেল সার্ভিস (ইউপিএস)

ইউনাইটেড পার্সেল সার্ভিস এক শতাব্দীরও বেশি আগে একটি ছোট মেসেঞ্জার সার্ভিস থেকে $ 100 লোনের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করেছিল।  এখন, এটি বিশ্বের সর্ববৃহৎ প্যাকেজ ডেলিভারি কোম্পানি।  এটি গ্রাহকদের আধুনিক পরিবহন এবং আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সেবা প্রদানের মাধ্যমে বহু বিলিয়ন ডলারের বৈশ্বিক কর্পোরেশনে রূপান্তরিত হয়েছে। 

ইউনাইটেড পার্সেল পরিষেবার সারা বিশ্বের 220 টিরও বেশি দেশে শাখা রয়েছে যেখানে প্রায় 495000 কর্মচারী কাজ করে।  ভবিষ্যতে, ইউপিএস বিশ্বব্যাপী শিল্পগুলিকে সংযুক্ত করার জন্য উচ্চমানের পরিষেবা, নিরাপত্তা এবং নির্ভরযোগ্যতা প্রদান করবে।

ফক্স পার্সেল

ফক্স পার্সেল ২০১৪ সালে একটি আন্তর্জাতিক রসদ এবং মালবাহী ফরওয়ার্ডিং সেবা হিসেবে যাত্রা শুরু করে।  এটি বাংলাদেশের ক্লায়েন্টদের কাছে পার্সেল সংগ্রহ এবং বিতরণের মাধ্যমে ঘরে ঘরে সেবা প্রদান করে।  তারা মূলত আন্তর্জাতিক শিপিং সেবা নিয়ে কাজ করে। 

এই কুরিয়ার সার্ভিস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, দুবাই এবং ভারত থেকে বাংলাদেশে পার্সেল স্থানান্তর করতে সাহায্য করে।  যে কেউ সহজেই ওয়েবসাইট, ফেসবুক এবং ফোনের মাধ্যমে অর্ডার করতে পারে। বাংলাদেশী ফক্স পার্সেল ভারতের চেয়ে কম চার্জ করে।  বাংলাদেশ থেকে ভারতের পার্সেল বিনিময়ের জন্য ডোর টু ডোর সেবা পেতে আপনি 60% পর্যন্ত খরচ সাশ্রয় পাবেন।

তাদের সেবার মধ্যে রয়েছে বিদেশী কেনাকাটা, দেশীয় কুরিয়ার, আমদানি ও রপ্তানি, গুদামজাতকরণ, এয়ার মালবাহী, সড়ক পরিবহন, মহাসাগর মালবাহী এবং আরো অনেক কিছু।  বিদেশী কেনাকাটা, আমদানি ও রপ্তানির মাধ্যমে, এয়ার মালবাহী, মহাসাগর মালবাহী যে কেউ সারা বিশ্বে পণ্য সংগ্রহ এবং বিতরণ করতে পারে।  গার্হস্থ্য কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে, আপনি সারা দেশে পার্সেল স্থানান্তর করতে পারেবেন।

সর্বশেষ কথাঃ বাংলাদেশ কুরিয়ার সার্ভিস

পরিশেষে বলতে পারি যে, বিশ্বে অনেক অনলাইন বাংলাদেশ কুরিয়ার সার্ভিস সমূহ রয়েছে, অ্যামাজন, আলিবাবা, দারাজ সহ বিভিন্ন ধরনের সেবা প্রদান করে। তাই আপনাদের সামনে কিছু বর্তমান সময়ে কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ এর মাধ্যমে দেশে মধ্যে চিঠি পত্র, আসবাবপত্র, টাকা, আম, লিচু, ইত্যাদি পণ্য আপনার ঘরে পৌছে দিয়ে সেবা প্রদান করে বাংলাদেশ কুরিয়ার সার্ভিস সমূহ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0মন্তব্যসমূহ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)

#buttons=(Ok, Go it!) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Check Now
Ok, Go it!