বাজেট চক্র কি? বাজেট তৈরির ধাপগুলো কি কি- easykhobor

ব্যাডমিন্টন খেলার নিয়ম

বাজেট চক্র কি- খসড়া বাজেট ধাপগুলো কি কি নতুন বছরের বাজেট তৈরি করতে প্রতি বছরের আগস্টে ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেশন কাউন্সিলের বৈঠক শুরু হয়। বাজেটে কিছুটা সংশোধন আসে ডিসেম্বরে। ফেব্রুয়ারির শেষ দিকেই নতুন বাজেট প্রণয়ণের বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয় বৈঠক শুরু হয়। এপ্রিলে হয় সম্পদ কমিটির বৈঠক।  আর বাজেট প্রণয়নের দু’মাস আগে থেকেই চলে প্রাক বাজেট আলোচনা।

সূচিপত্রঃ বাজেট তৈরির নিয়ম

  • বাজেট চক্র কি?
  • বাজেট তৈরির ধাপগুলো কি কি?
  • বাজেট তৈরির পদ্ধতি
  • বাজেট তৈরির নিয়ম
  • বাজেট চক্রের সংশোধনী
  • খসড়া বাজেট প্রণয়ন

বাজেট প্রণয়নের জন্য আলাদা কোন বরাদ্দ থাকে না। বাজেট তৈরির নিয়ম নিত্য নৈমত্তিক কাজের অংশ হিসেবে কর্মকর্তারা তা করে থাকেন। তবে বাজেট প্রণয়নের সঙ্গে জড়িত অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের কর্মকর্তাদের বাড়তি পারিশ্রমিক দেয়া হয়।

বাজেট চক্র কি?

বাজেট নিয়ন্ত্রণ করার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠানে ও কার্যকর করার জন্য বাজেট প্রণয়নের উদ্দেশ্য ও নীতিমালা নির্ধারণ করা থেকে শুরু করে পূর্বাভাস রচনা, বাজেট প্রণয়ন, সংশোধিত খসড়া, বাজেটে প্রণয়ন চূড়ান্ত বাজেট প্রস্তুত করুন, ইত্যাদি পর্যন্ত যাবতীয় কার্যপ্রণালী ও কার্যক্রমকে বাজেট সংগ্রহ বলে। মূলত বাজেট নিয়ন্ত্রণ উপরে উক্ত কার্যাবলী চক্রাকারে আবির্ভূত হয় বলে একে বাজেট চক্র বলে।

বাজেট তৈরির ধাপগুলো কি কি?

বাজেটে প্রকৃতি কার্যফলের তুলনা করণ ও প্রতিনিধিত্বমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা পর্যাপ্ত চক্রকেই বাজেট চক্রের ধাপ হিসেবে ধরা হয়। বাজেট চক্রের ধাপগুলো হলোঃ

  • খসড়া বাজেট প্রণয়ন
  • পূর্বাভাস রচনা
  • সংশোধিত খসড়া বাজেট প্রণয়ন
  • উদ্দেশ্য ও নীতি নির্ধারণ
  • চূড়ান্ত বাজেট প্রস্তুত
  • অনুমোদিত ও প্রবর্তন আদেশ
  • বাজেট প্রকৃত ফলাফল তুলনা

উদ্দেশ্য নীতি নির্ধারণ

বাজেট প্রণয়নের মূল উদ্দেশ্য ও নীতি নির্ধারণ বাজেট চাকার প্রথম ধাপ।এ সকল প্রতিষ্ঠানে মালিক ও শীর্ষ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য ও নীতি নির্ধারণ করা এর মূল উদ্দেশ্য। এই উদ্দেশ্যে নীতিমালা বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন ধরনের বাজেট প্রস্তুত প্রক্রিয়া শুরু করে তাই হল বাজেট চক্র।

পূর্বাভাস রচনা

পূর্বাভাস বাজেট চক্রের দ্বিতীয় ধাপ, পূর্বে নির্ধারিত বাজেট চক্রের উদ্দেশ্যে ও নীতিমালা আলোকে যথার্থ ও নির্ভুল পূর্বাভাস রচনার একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ কাজ। তাই সঠিক পূর্বাভাসের উপরে বাজেট সাফল্য নির্ভরশীল।

খসড়া বাজেট প্রণয়ন

বাজেট চক্রের ধাপগুলো মধ্যে তৃতীয় ধাপ হলো খসড়া বাজেট। বাজেট পূর্বাভাস রচনা ফর বিভাগীয় ম্যানেজারগঞ্জ নিজ নিজ বিভাগের জন্য খসড়া বাজেট প্রস্তুত করেন। তাই বাজেট অফিসারের নিকট পেশ করেন। বাজেট অফিসার বিভাগীয় ম্যানেজার গন খসড়া বাজেট গুলো সমন্বয় মাধ্যমে একটি খসড়া বাজেট প্রস্তুত করেন।

বাজেট চক্রের সংশোধনী খসড়া বাজেট প্রণয়ন

বাজেট চক্রের ধাপগুলো দিক থেকে চতুর্থ ধাপ হলো খসড়া বাজেট প্রণয়ন। বাজেট অফিসার খরচা বাজেট প্রস্তুত করার পর বাজেট কমিটি একটি সভা আহবান করেন তাই এ বাজেট কমিটির উক্ত সভা বাজেট অফিসার কর্তৃ ক প্রণীত খসড়া বাজেটটি উপস্থাপন করা হয়। খসড়া বাজেটেের বিভিন্ন দিক পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় সংশোধনী প্রস্তাব সহ বাজেট কমিটি খসড়া বাজেট অনুমোদন করেন।

চূড়ান্ত বাজেট প্রস্তুত

বাজেটের পঞ্চম ধাপে হচ্ছে চূড়ান্ত বাজেট প্রস্তুত করা হয় এই খরচা বাজেট অনুমোদনের পর বিশেষজ্ঞ কর্মীদের সহযোগিতায় বাজেট অফিসার প্রতিষ্ঠানের চূড়ান্ত বাজেট প্রণয়ন করেন। এ প্রতিবেদনসহ বাজেটে প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী নিকট অনুমোদনের জন্য পেশ করা হয়।

অনুমোদন ও প্রবর্তন উপদেশ

বাজেট চক্রর ষষ্ঠ ধাপ হল বাজেট অনুমোদন প্রবর্তন আদেশ প্রদান। এভাবে বাজেট সকল প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী প্রযোজকের প্রয়োজনের পরিচালক পর্ষদের মতামত গ্রহণ করে থাকেন। তাই বাজেট অনুমোদন করে তা প্রবর্তনের আদেশ প্রদান করে।

বাজেট ও প্রকৃত ফলাফল এর তুলনা

বাজেট চক্রের ধাপগুলোর সর্বশেষ ধাপ হলো প্রকৃত ফলাফল সাথে বাজেটের তুলনা। বাজেট এর সাথে প্রকৃত ফলাফল এর তুলনা করে কোন বিচ্যুতি দেখা দিলে তার কারণ বিশ্লেষণ করা হয় এবং প্রতি বিধানমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। উপরের উত্তর ধারাবাহিকতা বাজেট চক্র আবর্তিত হয়ে থাকে।

সর্বশেষ কথাঃ বাজেট তৈরির পদ্ধতি

বাজেট তৈরির ধাপগুলো থেকে বাজেট চক্র কি তা আমরা জানতে পেরেছেন। খসড়া বাজেট তৈরির পদ্ধতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) প্রতিবছরই প্রাক বাজেটের আয়োজন করে থাকে। মাসব্যাপী চলে এই আলোচনা। এতে ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা তাদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া তুলে ধরে। আয়কর-ভ্যাট-কাস্টমস নীতিতে বিভিন্ন সংস্কারের প্রস্তাব দেন তারা। বাজেটেও এর কিছুটা প্রতিফলন থাকে।

বাজেট তৈরির নিয়ম চলুন জেনে নেওয়া যাক ব্যক্তিগত বাজেট তৈরির চারটি কার্যকরী ধাপ - ১) নিজের আয়ের উৎস ও ব্যয়ের খাতগুলো চিহ্নিত করুন। নিজের আয়ের উৎসগুলো ও ব্যয়ের খাতগুলো উল্লেখ করে তালিকা তৈরি করুন। পাশে আয় ও ব্যয়ের পরিমাণও লিখে রাখুন যাতে আয়-ব্যয় নিয়ে পুরোপুরি ধারণা পাওয়া যায়। এরপর দেখুন আয় আর ব্যয়ের পার্থক্য কেমন।

আরো পোস্ট দেখুন
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url