ইজি খবর https://www.easykhobor.com/2022/06/blog-post.html

মাঙ্কি পক্স কিভাবে মানুষের শরীরের ছড়ায়।


বর্তমানে আমরা এ মহূর্তে একটি জটিল সম্মুখীন হচ্ছে যা অন্তর্গত এবং মাংস হচ্ছে আফ্রিকা সেই দেশগুলোর মধ্যে একটি সংক্রমণ যার কোনো ইতিহাস নেই সেখানে স্বাভাবিকভাবে মা কিভাবে ভাইরাস দেখা দেয় এবং এবং যার ফলে মাংকি পৌষ ধরা পড়েছে পরে। বর্তমানে আমরা এরকম একটি অস্বাভাবিক সংক্রমণ বলে অভিহিত করা হয়েছে।

ডাক্তার আগম রাও বলেছেন সেন্ট্রাল ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন ডিভিশন অফ হাই কনফিগুরেশন প্যাথোজেনস এন্ড প্যাথলজি মেডিকেল অফিসার। ১৬০টির ও এদেশে মাঙ্কি পক্স ঘটনা রিপোর্ট প্রকাশ করা যায় যার মধ্যে বেশিরভাগই ইউরোপ এবং মধ্য এবং পশ্চিম আফ্রিকা।

মাংঙ্কি পক্স কী ?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গত সপ্তাহে প্রথম দুটি মাংঙ্কি পক্স কী নিশ্চিত করা হয়েছে। ম্যাসাচুসেটসে এবং আরেকটি  নিউইয়র্ক সিটি।

বর্তমানে ইউরোপে ১২টি দেশে এই সংক্রমণ রোগে আক্রান্ত হয়েছে। যেমন অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ড, পর্তুগাল, স্পেন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, ইউনাইটেড গ্লোবাল অফ হেলথ এর মতে ।

ইউরোপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইরের এছাড়াও কিসেরও শনাক্ত হয়েছে যেমন অস্ট্রেলিয়া কানাডা এবং ইসরাইলে এ রোগ সনাক্ত হয়েছে এবং কোন মৃত্যু রিপোর্ট প্রকাশ হয়নি।

মাংঙ্কি পক্স কী এবং এর নাম কোথা থেকে এসেছে।

মাংকি পোকসো হলো একটি ভাইরাস এটি একটি পরিবারের অন্তর্গত এর আগে যারা আপনারা দেখেছেন গুটি বসন্ত ঠিক তেমনি হচ্ছে মাংকি পক্স।

১৯৫৮ সালে ল্যাবরেটরী মাধ্যমে এটি আবিষ্কার করা হয়। এ রোগে নামকরণ করা হয়েছে বানরের নাম এর মাধ্যমে। সর্বপ্রথম মাংকি পক্স মানুষের শরীরে দেখা যায় বার নির্ণয় করা হয় ১৯৭০সালে একজন মানুষের মধ্যে।

তারপর থেকে বেশিরভাগ সংক্রমণ দেখা পাই আফ্রিকান রিপাবলিক অফ কঙ্গ এবং নাইজেরিয়াতে এটি বেশি দেখা যায় ডি আর সি প্রতিবছর হাজার হাজার এর সমস্যা রিপট প্রকাশ করে থাকে। এবং নাইজেরিয়ায় ২০১৭ সালে এ রিপোর্ট হিসেবে ২০০টিরও বেশি নিশ্চিত করে এরপরে ৫০০টিও বেশি সন্দেহভাজন রিপোর্ট প্রকাশ করে।

পক্স রোগ কিভাবে মানুষের শরীরের ছড়ায়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে প্রতি বছর আমরা এ রোগটা পেয়ে থাকি বর্তমানে ১০ শতাংশ লোকের এ রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকে। এর মধ্যে এক শতাংশ লোক মারা যায়। আফিয়া পশ্চিম আফ্রিকা ইউরোপের প্রথম রিপোর্ট অনুসারে এই রোগ বেশি দেখা যায় না। তবে আমরা অপেক্ষায় পশ্চিম আফ্রিকা রাও এর রিপোর্ট অনুসারে সাধারণত বেশ ভালো এ রোগের সেরে যায়, এবং সেটা শেষ হয়ে গেলে তাদের নিয়মিত জীবনে চলে আসতে পারে।

মাংঙ্কি পক্স কিভাবে মানুষের শরীরের ছড়ায়

আফ্রিকার সিবিসি রিপোর্ট অনুসারে সিডিসি রিপোর্ট অনুসারে মানুষের কামোর বা আসরে মাধ্যমে বা বর্ণ জন্তু থেকে মাংস প্রস্তুত করার মাধ্যমে প্রাণীদের থেকে এ রোগ মানুষের শরীরে দেখা যায় এটাই হল মাঙ্কি পক্স।

সেরা নিষিদ্ধ ১০টি অ্যাপ ২০২২সালের।

মাংঙ্কি পক্স কি মানুষের ছোঁয়াচে রোগ।

একজন মানুষ দেরি হয়েছে এভাবে একজন মানুষের মুখোমুখি ভাবে যোগাযোগ শ্বাস প্রশ্বাস এর মাধ্যমে এক ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তি এই সংক্রমণ করতে পারে শারীরিক তরল সংক্রমণর সংক্রমণ গড়াতে পারে। মানুষের শরীরের তরল বা কোন ক্ষতিগ্রস্ত রোগজীবাণু যেমন পোষা বিছানা দূষিত সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমে ফ্লোর থেকে অন্য লোকের সংস্পর্শে এলে এ রোগ হয়।

সর্বশেষ কথাঃ মাংঙ্কি পক্স কিভাবে মানুষের শরীরের ছড়ায়।

ইউরোপ ইউরোপের সর্বপ্রথম মাঙ্কি পক্স শনাক্ত হওয়ার ফলে একজন পুরুষের মধ্যে প্রথম দেখা দেয় ।একজন পুরুষের সাথে যৌন মিলন করে মাঙ্কি পক্স যৌন-সংক্রমণ হিসেবে বিবেচনা করা হয় সর্ব প্রথম এটি ।

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?