টু-কলার কি- মোবাইলে ট্রু-কলার ব্যবহার করার সুবিধা

আজকাল দিনে ট্রু-কলার যে সকল মোবাইলে ব্যবহার করে থাকেন এবং মোবাইলে ট্রু-কলার কখনো কখনো অচেনা ব্যক্তির ফোন কল এবং কখনো কল আসে সেটি বুঝতে পারতে না। বুঝতে না পারার কারণে আমরা অনেক সময় সমস্যার সম্মুখীন হয়।

এর জন্য আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের সুবিধার জন্য এবং ট্রুকলার একটি অ্যাপ্লিকেশন তা সম্পর্কে আলোচনা করব যার নাম হল ট্রু-কলার। এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি মোবাইলে যে কোন ফোন কল সম্পর্কে আগে থেকে ইনফরমেশন পেয়ে যাবেন।

সূচিপত্রঃ Truecaller

  • টু-কলার কি?
  • ট্রু-কলার মানে কি?
  • ট্রু-কলার মানে কি?
  • ট্রু-কলার কে আবিষ্কার করেন।
  • ট্রু-কলার মোবাইলে কিভাবে কাজ করে।
  • মোবাইলে ট্রু-কলার ডাউনলোড করার উপায়।
  • মোবাইলে ট্রু-কলার ব্যবহার করার সুবিধা।

আপনি যদি ট্রু-কলার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য ট্রু-কলার কি ট্রু-কলার মানে কি এবং ট্রু-কলার কিভাবে কাজ করে এবং টু-কলার ডাউনলোড করবেন কিভাবে এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

টু-কলার কি?

ট্রু-কলার হলো একটি অ্যাপ্লিকেশন। যেটি পৃথিবীর বেশিরভাগ ইউজার তাদের নাম্বার লুকাপ সার্ভিস Number lookup Service এর জন্য ব্যবহার করে থাকেন।ট্রু-কলার truecaller অ্যাপ্লিকেশন টি মোবাইলে ইন্সটল করে রাখলে কোন অচেনা ব্যক্তির ফোন কল সম্পর্কে আপনি খুব সহজে ইনফরমেশন পাবেন। আপনি কখনো কখনো মোবাইলে অনেক ব্যক্তির মোবাইল নাম্বার সেভ থাকে না, এবং অনেক ফেক কল আসে। আপনি টু-কলার অ্যাপ্লিকেশন মোবাইলে ইন্সটল করার পর নির্দিষ্ট নাম্বারটি কি নামে সিম রেজিস্ট্রেশন Registration করা আছে ।এটি সম্পর্কে জানতে পারবেন।

আপনি যদি ট্রু-কলার অ্যাপ্লিকেশন আপনার মোবাইলে ইন্সটল করে থাকেন। তাহলে আপনার নাম্বার সেভ না থাকা ব্যক্তির নাম কি, এটা ফোনে আসার সাথে সাথে আপনার মোবাইল স্ক্রিনে উঠে আসবে এবং তার নাম দেখার পর আপনি এটি নির্ণয় করতে পারবেন নির্দিষ্ট ফোন কলটি আপনার তোলা উচিত কিনা।

ট্রু-কলার মানে কি?

ট্রু-কলার একটি অ্যাপ্লিকেশন। এটির সাহায্যে পুরো পৃথিবীর সমস্ত ট্রু-কলার দ্বারা ফিউচার দ্বারা ইউজার দ্বারা নাম্বার লুকাপ সার্ভিস এর জন্য ব্যবহার করা হয়। এবং এটির মাধ্যমে কোন নির্দিষ্ট ইউজার তার মোবাইলে আসা ইনকামিং কলের সমস্ত ইনফরমেশন পেয়ে থাকেন।

ট্রু-কলার এর কাজ কি Truecaller ব্যবহারের নিয়ম

Truecaller অ্যাপ্লিকেশন এর মুখ্য উদ্দেশ্য হলো যেকোনো মোবাইল ব্যবহারকারীর কাছে পুরো পৃথিবীর যেকোনো অজানা ব্যক্তির নাম্বার এবং তার নাম সম্পর্কে ইনফরমেশন দেওয়া ট্রু-কলারের মাধ্যমে আপনি নির্দিষ্ট ব্যবহারকারীর খুব সহজে কোন অচেনা ব্যক্তির মোবাইল নাম্বার দেখে নাম খুঁজে বের করে নিতে পারবেন। 

ট্রু-কলার কে আবিষ্কার করেন।

ট্রু-কলার ২০০৯ সালে এলেন Alan Mamedi এবং Nami Zarringhalm নাঈম যাররিনগ্যাম নামক ব্যক্তি মিলে টু-কলার আবিষ্কার করেন।

ট্রু-কলার অ্যাপ্লিকেশনটি ট্রু-কলার সফটওয়্যার বা Scandinavia AB নামক একটি পাইভেট কোম্পানি দ্বারা তৈরি করা হয়। এটি হলো সুইডেন এর একটি Privately Held company প্রাইভেট কোম্পানি।

ট্রু-কলার মোবাইলে কিভাবে কাজ করে।

ট্রু-কলার এপ্লিকেশন মোবাইল ইন্সটল করার পর, আপনাকে কিছু পারমিশন দিতে হয়। এ সকল পারমিশন গুলোর মধ্যে কন্টাক এক্সেস ওকে দিতে হয়। একটি পারমিশন যুক্ত করা থাকে এর পরে এই পারমিশনটি এলাও করার সাথে সাথে আপনার মোবাইলে সমস্ত কন্টাক ইনফরমেশন ট্রু-কলার তার নিজস্ব সার্ভারে জমা করে নেয়। এরকম ভাবে ট্রু-কলার তার সমস্ত এজাদের কন্টাক ইনফরমেশনগুলি তাদের সার্ভারে সেভ করে রাখে এবং এর জন্য ধীরে ধীরে টু-কলার কোম্পানির কাছে সমস্ত ব্যক্তিদের নাম সেভ হয়ে যায়।

মোবাইলে ট্রু-কলার ডাউনলোড করার উপায়।

আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে ট্রু-কলার অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করতে চান।তাহলে গুগল প্লে-স্টোর থেকে আপনাকে সেই অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।

আপনি প্লে স্টোর ওপেন করার পর সার্চ বক্সে ট্রু-কলার লিখে সার্চ করুন এবং এরপর আপনার সামনে অ্যাপ্লিকেশন টির নাম চলে আসবে। আপনি ইন্সটল অপশনের উপর ক্লিক করে অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার মোবাইলে ডাউনলোড করে নিন।

ট্রু-কলার ব্যবহার করার জন্য আপনাকে ট্রু-কলার অ্যাপ্লিকেশনটিতে আপনার মোবাইল নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এরপরে ট্রু-কলার একাউন্ট হয়ে যাবে এবং তা অনায়াসে আপনি টু-কলার ব্যবহার করতে পারবেন।

মোবাইলে ট্রু-কলার ব্যবহার করার সুবিধা।

  • আপনি যেকোনো ধরনের আনওয়ান্টেড কল বা মেসেজ ব্লক করতে পারবেন।
  • ইন্টারনেট ছাড়া যে কোন ইনকামিং কল আসা অচেনা ব্যক্তির নাম দেখতে পারবেন।
  • স্পেনার কল সম্পর্কে আগে থেকে ইনফরমেশন পেয়ে যাবেন।
  • ইনকামিং কল খুব সহজে ব্লক করতে পারবেন।
  • ট্রু-কলার কোন কোন প্ল্যাটফর্মে চালাতে পারবেন।

ট্রু-কলার প্রাইস সব ধরনের প্লাটফর্মে ব্যবহার করতে পারবেন ।যেমন এন্ড্রয়েড ফায়ারফক্স আই ও এস ,৮০ স্যাম্প ইন,এস সিক্সটিন, ব্ল্যাকবেরি এবং উইন্ডোজ ফোন।

সর্বশেষ কথাঃ ট্রু-কলার কিভাবে কাজ করে।

মোবাইলের মাধ্যমে আপনার ট্রু-কলার অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করার পর এখানে আপনারা বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পেতে পারেন। ট্রু-কলার কি এবং কে আবিষ্কার করেছেন এবং ট্রু-কলাররে কাজ কি সে সম্পর্কে এখানে বিস্তারিত আপনাদের কাছে তুলে ধরা হয়েছে ট্রু-কলার ২০০৯ সালে আবিষ্কার হওয়ার পর থেকে এর ব্যাপকতা অনেক এর কাজ হল আপনি যদি কোন মোবাইল থেকে আপনার অচেনা নাম্বার থেকে কল আসে তাহলে আপনি খুব সহজে মোবাইল নাম্বার দেখে নাম খুঁজে বের করতে পারবেন ট্রু-কলার এর মাধ্যমে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0মন্তব্যসমূহ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)

#buttons=(Ok, Go it!) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Check Now
Ok, Go it!