মাঙ্কি পক্স এর লক্ষণ ও প্রতিকার।

বর্তমানে করনা ভাইরাস একটি উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এরইমধ্যে নতুন একটি ভাইরাসের আবিষ্কারক হয়েছে যেটা মন কি পাও মাংকি পক্স। গত সাথে মেয়ে প্রথম মাংকি পক্সে আক্রান্ত ব্যক্তির সন্ধান মিলেছে লন্ডনে। 

তিনি একজন নাইজেরিয়া থেকে ফিরছিলেন ডাক্তার আন্দাজে ব্যক্ত সেখানে মাংকিপক্স ভাইরাস এর সংস্পর্শে আসেন তারপর আরো ছয় জনের হদিস মেলেনি প্রশান্ত রোগীর সে কারণে গোটা ব্রিটেনজুড়ে জারি রয়েছে সর্তকতা বর্তমানে সকলকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

মাংঙ্কি পক্স  এর লক্ষণ ও প্রতিকার।

বিশেষজ্ঞদের মতে এটি একটি বিশেষ ধরনের পক্স এ ভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্তদের সুস্থ করার কোন চিকিৎসা মেলেনি নেই কোন সঠিক উচ্চতায় প্রয়োজন সর্তকতা আজিমকে জেনে নিন কয়টি অজানা কথা।

বিজ্ঞানীদের মতে দশটি বিশেষ রোগের মধ্যে মাংকি পক্স হল একটি, এ রোগে আক্রান্ত হলে শরীরে মারাত্মক ক্ষতি হয়। এমন কি কোন বাচ্চার শরীরে রোগ বা ভাইরাস বাসা বাধলে তার মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে

মানকি পক্স ফুলের মত রোগ এ ভাইরাস শরীরে ঢুকলে জ্বর মাথাব্যথা গাঁটে ব্যথা মত লক্ষণ দেখা দেয়। শরীরে পরম্পরা গুটির মত বের হয় এবং এই লক্ষণ দেখলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

মাংকিপক্স ঘটনাটি সর্বপ্রথম আফ্রিকাতে প্রচলিত সেখানে একটি মানুষের শরীরের দুর্বল প্রাণী ছোট প্রাণীর কামড়ে মাধ্যমে সংক্রমিত হয়েছে ।এবং সাধারণত এটি মানুষের মধ্যে সহজে ,কিন্ত বর্তমানে এ রোগে আক্রান্ত সন্ধান মিলেছে এ প্রসঙ্গে জারি করা হয়েছে সতর্কতায় এটি একটি মারাত্মক রোগের মধ্যে একটি ছোঁয়াচে রোগ বলে মনে করছেন অনেকেই মাংকিপক্স  লক্ষণ ও যেভাবে ছড়ায় তা জানেন না

গবেষণায় জানা গেছে যে স্মলপক্স ভ্যাকসিন মানকি প্রক্সি ক্ষেত্রে কাজ করে থাকে। এ ভাইরাস শরীরের সংক্রমণ ঘটানোর তিন থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে স্মলপক্স ভ্যাকসিন নিলে রোগ নির্ণয় থেকে মুক্তি মিলবে।

 মাংঙ্কি পক্স  এর প্রতিকার।

আমরা যেসব রোগ হাম বসন্ত স্কার্ভি ও সিফিলিসের কিছু কিছু লক্ষণ এর সঙ্গে এ রোগের মেয়ে দেখতে পাওয়া যায় তাই অনেকেই রোগকে এসব রোগের উপসর্গ হিসেবে গ্রহণ করেন ভুল করেন এটাই স্বাভাবিক হওয়ার মাধ্যমে এ সমস্যা দেখা দিলে সবার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিন ত্বকে সংক্রমণের মত সমস্যার চিকিৎসা ঘরোয়া টোটকা হওয়া কঠিন কঠিন হবে শেষ সময়ে সঠিক চিকিৎসা পরামর্শ নিলে মুক্তি মিলবে।

মাংঙ্কি পক্স কি ছোঁয়াচে রোগ।

একজন মানুষ দেরি হয়েছে এভাবে একজন মানুষের মুখোমুখি ভাবে যোগাযোগ শ্বাস প্রশ্বাস এর মাধ্যমে এক ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তি এই সংক্রমণ করতে পারে শারীরিক তরল সংক্রমণর সংক্রমণ গড়াতে পারে। মানুষের শরীরের তরল বা কোন ক্ষতিগ্রস্ত রোগজীবাণু যেমন পোষা বিছানা দূষিত সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমে ফ্লোর থেকে অন্য লোকের সংস্পর্শে এলে এ রোগ হয়।

সর্বশেষ ঃমাংঙ্কি পক্স  এর লক্ষণ ও প্রতিকার।

মাঙ্কি পঙ্ক হল মানুষের পরজীবি ভাইরাস । এই রোগের ফলে মানুষের মৃত্যু নেই তবে এটা ছোঁয়াচে বলে কেউ কউ।সাধারণত এটি মানুষের মধ্যে সহজে ,কিন্ত বর্তমানে এ রোগে আক্রান্ত সন্ধান মিলেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0মন্তব্যসমূহ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)

#buttons=(Ok, Go it!) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Check Now
Ok, Go it!