ফেসবুক কাকে বলে? ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা

বর্তমান বিশ্বের সবথেকে বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হল ফেসবুক।ফেসবুক কি এই ফেসবুকে মানুষের দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন যোগাযোগের মাধ্যম এবং তথ্য আদান প্রদান করে থাকে। আজকের দিনে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫০০ মিলিয়ন এর বেশি।

ফেসবুক কি? ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা

আপনি যদি ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য। ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা এবং বর্তমান পরিস্থিতিতে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা আপনার পক্ষে নিরাপদ কিনা বা ক্ষতি করে থাকে কিনা এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আশা করে একটা হলে আপনার উপকৃত হবেন।

আরো পড়ুনঃ ফেসবুক পাসওয়ার্ড রিসেট করার উপায়।

ফেসবুক কি?

ফেসবুক বর্তমানে একটি সবথেকে বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। এ প্লাটফর্মে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকে। আপনার ফেসবুকের মাধ্যমে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে।এর মাধ্যমে আপনি চ্যাটিং ভিডিও শেয়ারিং কল ভিডিও কলিং এবং সকল ধরনের ফেসিলিটি পেতে পারেন। ফেসবুকে Facebook একটি আপনার গ্রুপ এবং তৈরি করেও রাখতে পারেন।

আরোপড়ুনঃ  কম্পিউটার কী?

ফেসবুক কাকে বলে?

ফেসবুক বলতে আমরা সাধারণত একটি সোশ্যাল মিডিয়া বুঝে থাকে। এর মাধ্যমে একে অন্যের সাথে যোগাযোগ স্থাপিত হয় এবং চ্যাটিং এর মাধ্যমে সকল তথ্য ইনফরমেশন শেয়ার ভিডিও কলিং করার মাধ্যমে সকল সুযোগ-সুবিধা করলে পাওয়া যায়।

আরো পড়ুনঃ ফেসবুকে লেখালেখি করে আয়-মেটা

ফেসবুকে এছাড়াও বিভিন্ন পেজ ও গ্রুপ বানানো যায় যার মাধ্যমে অনুগ্রহে বিভিন্ন ইনফরমেশন ও তথ্য নেওয়া যায়। ফেসবুকে মাধ্যমে বিভিন্ন বিজনেস প্রমোট করা থেকে শুরু করে বন্ধু খোঁজা এবং পৃথিবীর যেকোন ব্যক্তির সাথে বন্ধ করার জন্য ফেসবুক কাজে লাগে।

ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা

ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা নিম্নে দেওয়া হলঃ

আমরা প্রথমে বলে থাকি ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা সম্পর্কে আলোচনা করব যার মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন facebook কেন আপনার পক্ষে ব্যবহার করা প্রয়োজন ফেসবুক ব্যবহার করে যে সকল সুবিধা গুলি পাবেন সেগুলো হল

আরো পড়ুনঃ ই-কমার্স এর অসুবিধা

ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা।

ফেসবুক ব্যান্ড বা ব্যবসায় প্রমোশন।

ফেসবুক হলো আজকের দিনে সব থেকে বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম এই জন্য ফেসবুকে প্রচুর পরিমাণে যারা থাকে আপনি যদি কোন ব্যবসা করে থাকেন তবে আপনি ফেসবুকের মাধ্যমে তার প্রমোশন করতে পারবেন বা প্রমোট করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ লোগো তৈরী করার সফটওয়্যার

আমরা ব্যবসার নাম সবার কাছে পৌঁছানোর সাথে সাথে আপনি অনেক বেশি কাস্টমার বা লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবেন এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে।এজন্য ফেসবুকে আপনি একটি পেজ বা গ্রুপ বানিয়ে আপনার ব্র্যান্ড এবং ব্যবসা প্রমোট করতে পারবেন এটি হল ফেসবুক ব্যবহারকারীর সবচেয়ে বড় সুবিধা।

যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ফেসবুক কানেকশন।

ফেসবুকের সবচেয়ে বড় চ্যাটিং প্ল্যাটফর্ম হওয়ার কারণে এখানে বেশিরভাগ মানুষই ফেসবুকে একাউন্ট বানিয়ে থাকে। সেই সাথে বন্ধু-বান্ধব এবং আত্মীয়দের সাথে কানেকশন করে থাকে। এজন্য আপনি যদি কোন বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয়দের সাথে কানেকশন তৈরি করে রাখতে চান তাহলে ফেসবুক আপনার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

আরো পড়ুনঃ ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার উপায়

আপনি একটা অ্যাকাউন্ট বানানোর সাথে সাথে তাদের ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে এবং তাদের সাথে কানেকশন তৈরি করতে পারবেন খুব সহজেই। এরপর তাদের সাথে কথা বলা থেকে শুরু করে নতুন নতুন ইমেজ ভিডিও কলিং সেটিং করতে পারবেন।

ভিডিও কলিং বা চ্যাটিং।

বর্তমানে ভিডিও কলিং এর মাধ্যমে ফেসবুকে কথাবার্তা বলছেন এবং ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন অনেকেই। সেই সাথে ফেসবুক আমাদের বিন আমলের ভিডিও চ্যাটিং করার সুবিধা দিয়ে থাকে ফেসবুক। ফেসবুক একাউন্ট আপনার যে সকল বন্ধু আছে তারা যদি কোন নাম্বার ব্যতীত আপনার সাথে যোগাযোগ করতে চায় তাহলে তাদের সাথে যোগাযোগ করার সবথেকে ভালো মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুকের ভিডিও চ্যাটিং বা কলিং।

আরো পড়ুনঃ ই-কমার্স কি?

আপনি সেখানে খুব সহজে সহজ পদ্ধতিতে তাদেরকে ভিডিও কল করে তাদের সাথে কথা বলতে পারবেন এছাড়া আপনার সমস্ত আত্মীয় স্বজনদের সাথে গ্রুপ তৈরি করে একত্রে কথা বলতে পারবেন।

ভিডিও আপলোড করা।

ফেসবুকে আপনি আপনার নিজের বর্তমান এবং অতীতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ভিডিও আপলোড করতে পারবেন।যেসব ভিডিওগুলি আপনার সমস্ত ফেসবুক বন্ধু বান্ধবী এবং আত্মীয়দের সাথে শেয়ার করতে পারবেন। সুতরাং আপনি যদি কোন ভিডিও ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনি সেই সমস্ত ভিডিওগুলি আপনার ফেসবুক একাউন্টে আপলোড করে আপনার বন্ধু-বান্ধবদের উপর উপহার দিতে পারবেন।

ফেসবুকে ছবি আপলোড।

আপনি খুব সহজে ফেসবুকে একটি নিজের ছবি আপলোড করে দিতে পারবেন যেখানে আপনার নিজের ছবি এবং কোন ফটোগ্রাফির ছবি ভালো বন্ধু বান্ধবের সাথে শেয়ার করতে পারবেন। সেজন্য আপনার ভালো ছবিগুলো সকলের সাথে শেয়ার করার জন্য ফেসবুক একাউন্টে বা ভালো কোন পেজ বা গ্রুপে আপলোড করে আপনার বন্ধু-বানদের দেখাতে পারবেন।

ফেসবুকে হওয়া ফেমাস ব্যক্তি হওয়া।

আপনি যদি কোন ফেমাস ব্যক্তি হতে চান তাহলে ফেসবুকে আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি প্ল্যাটফর্ম সোশ্যাল মিডিয়া। একজন আপনি যদি চান আপনার নাম এবং আপনার কাজকর্ম সবাই জানুক তাহলে ফেসবুকের মাধ্যমে এটি সম্ভব ফেসবুকে অধিক পরিমাণে ইউজার হওয়ার কারণে আপনি কোন গ্রুপ বানিয়ে আপনার নামটিকে খুব সহজেই বিখ্যাত করতে পারবেন ফেমাস করতে পারবেন।

নতুন কিছু শেখা ফেসবুকে নতুন কিছু শেখা।

বর্তমান যুগে ইনফরমেশন এর যুগ। তাই আপনাকে প্রতিদিন নতুন নতুন কিছু শিখতে হবে। সেই সাথে আপনাকে শেখানোর জন্য ফেসবুক আপনার সাথে উপস্থিত রয়েছে। facebook আপনার প্রতিদিন নতুন নতুন বিভিন্ন জিনিস শিখতে পারবেন কিন্তু কিছু জিনিস দেখবেন আপনার বন্ধু-বান্ধবদের থেকে এবং কিছু শিখবেন বিভিন্ন ভিডিও এবং ছবির মাধ্যমে।

ফেসবুকের মেমোরি মনে করে দেওয়া।

আপনাকে ফেসবুক অতীতের যে সকল ছবিগুলো বা পোস্টগুলো করেছেন তার ডেট অনুযায়ী বর্তমান সময়ে আপনার সামনে ছবিগুলো পুনরায় উপস্থাপন করে দেবে। সে সাথে আপনার পুরনো স্মৃতি বা মেমোরিগুলো মনে পড়ে যাবে সেই দিনগুলোর কথা।

আরো পড়ুনঃ ফেসবুক পেজে বেশি লাইক পাওয়ার উপায়

ফেসবুকে এভাবে আপনার প্রতিটি পুরনো ছবির পুনরায় নতুন করে আপনার সামনে বর্তমানে ডেটে উপস্থিত করে সেই ছবিগুলো আপনি বর্তমানে পুনরায় আবার বন্ধ বান্ধবের সাথে শেয়ার করে তাদের সাথে পুনরায় মেমরিটি সম্পর্কে জানাতে পারবেন এটা হল ফেসবুকের সব থেকে ভালো একটি সুবিধা।

ফেসবুকের খবর এবং ইনফরমেশন।

ফেসবুকে অসংখ্য নিউজ গ্রুপ এবং অন্যান্য গ্রুপ আছে আপনি সেই সমস্ত গ্রুপে যোগদান করে প্রতিদিন আপডেট খবর এবং নতুন নতুন ইনফরমেশন নিতে পারবেন।

আরো জানতেঃ নগদ একাউন্টের পিন পরিবর্তন করার উপায়

ফেসবুকে জয়েন্ট হওয়ার পর আপনাকে আপডেট খবর পাওয়ার জন্য টিভির সামনে বসে থাকতে হবে না আপনি খুব সহজে সময় মত ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট লগইন করে ফেসবুকে গিয়ে সমস্ত আপডেট খবর এবং ইনফরমেশন গুলিয়ে নিতে পারবেন।

ফেসবুক ব্যবহারের অসুবিধা।

যে সকল জিনিসের মাধ্যমে যে ফেসবুকের অসুবিধা আছে সেগুলো অসুবিধা আছে।আপনি যদি ফেসবুক ব্যবহার করা কথা ভাবছেন তাহলে ফেসবুক ব্যবহারের অসুবিধা গুলি অবশ্যই জেনে নিতে হবে ফেসবুক ব্যবহারের অসুবিধা সমূহ হলো।

প্রাইভেসি বা সিকিউরিটি।

ফেসবুকে সব থেকে বড় অসুবিধা হলো একজন ব্যক্তির পাইভেছে এবং সিকিউরিটি নষ্ট করে দেয়।ফেসবুক অনেক ধরনের মানুষ আছে যারা অনেক ব্যাগ থেকে পার্সোনাল ফটো এবং ভিডিওগুলো খারাপ কাজে ব্যবহার করে থাকে।

আরো জানতেঃ উপায় মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খোলার নিয়ম।

এর সাথে সাথে অনেক পার্সোনাল ইনফরমেশন অনেক ব্যক্তির সামনে চলে আসে যার কারণে তাদের প্রাইভেসি নষ্ট হয়।তাই আপনি যদি আপনার ব্যক্তিগত ইনফরমেশন এবং নিজের প্রাইভেস বা সিকিউরিটি রাখতে চান তাহলে ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা আপনার পক্ষে উচিত নয়।

ফেসবুকে সময় নষ্ট।

ফেসবুক অনেক ব্যক্তি আছে যারা সারাদিন ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে যার ফলে তাদের অনেক মূল্যবান সময় নষ্ট করে থাকে।তাই সঠিক সময় যে কাজটি করা প্রয়োজন সেই কাজটি তারা আর না করে সারাদিন ফেসবুক ব্যবহার করে এবং,

আরো পড়ুনঃ NID কার্ড দিয়ে কয়টি সিম কার্ড রেজিস্ট্রেশন হয়

অতিরিক্ত কার্যকলাপ করে তারা জীবনে অনেক সময় শুধু শুধু অতিবাহিত করে।তাই আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট না করে ভালো কিছু করতে চাইলে তাহলে যতটুকু দরকার ততটুকু ফেসবুক ব্যবহার করুন।

ফেসবুকে ফেক প্রোফাইল।

অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারী আছে যাদের ফেক প্রোফাইল হয়েছে তারা আপনার বন্ধু-বান্ধবদের এখানে বানিয়া আপনার সাথে কানেকশন তৈরি করার চেষ্টা করবে এবং আপনার সাথে অরজিনাল মনে করে আপনার ব্যক্তিগত ইনফরমেশন তাদের সাথে শেয়ার করে।

আরো পড়ুনঃ  ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলে করণীয়

এ ধরনের ভ্রান্ত থেকে বাঁচতে আপনাকে ফেসবুক থেকে দূরে থাকতে হবে এবং যদি ফেসবুক ব্যবহার করতে চান তাহলে নির্দিষ্ট অ্যাকাউন্টে অরজিনাল কিনা সেটে যাচাই করবার পর তাদের সাথে সম্পর্ক তৈরি করতে হবে।

ফেসবুকের লাইক কমেন্ট পাওয়ার উপায়।

ফেসবুকে অনেক ব্যক্তি আছে যারা শুধুমাত্র লাইক এবং কমেন্ট পাওয়ার জন্য ফেসবুক বেশিরভাগ সময়ে নতুন নতুন ছবি এবং ভিডিও শেয়ার করে থাকেন।সে কারণে তাদের মনে সারাদিন ফেসবুক খোলার ইচ্ছে জাগে এবং তাদের ভিডিও ছবিতে কত লাইক এবং কত কমেন্ট সেটা জানার চেষ্টা করে এ জন্য তাদের মনে সর্বদা facebook লাইক কমেন্ট চিন্তাটা লেগে থাকে যার ফলে তার নির্দিষ্ট কোন কাজে মন লাগাতে পারে না।

ফেসবুকে ভার্চুয়াল জগতে প্রবেশ করা।

ফেসবুক হল একটি ভার্চুয়াল দুনিয়া এই দুনিয়াতে প্রবেশ করলে আপনার পরিবার-পরিজনের সাথে সময় দেওয়া হয়ে ওঠে না।মানুষ যখন তখন ফেসবুকে তাদের আসল দুনিয়া বলে মনে করে এবং এই দুনিয়াতে তার প্রকৃত বন্ধু-বান্ধব ছেড়ে আত্মীয়-স্বজনদের থেকে দূরে সরে যায়।

স্বাস্থ্য শারীরিক ক্ষতি।

ওদের একটা ফেসবুক ব্যবহার কারণে মানসিক চাপে সৃষ্টি হয় এবং যার কারণে অনেক ব্যক্তি স্বাস্থ্য শারীরিক ক্ষতি হয়।যারা সারাদিন ফেসবুক ব্যবহার করে তাদের মাথার উপর চাপের সৃষ্টি হয় এবং মাথা যন্ত্রণা শুরু হয়ে থাকে তাই আপনারা স্বাস্থ্যের ও শরীরের ক্ষতির জন্য রোজা রাখতে আপনি ফেসবুক ব্যবহার করা থেকে দূরে থাকুন।

ফেসবুক ব্যবহারের সফল ও কুফল

আপনারা উপরে ইনফরমেশন থেকে আশা করে ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা সম্পর্কে জানতে পেরেছেন এখন আমরা ছোট করে ফেসবুকে ব্যবহারের সুফল ও কুফল কি তার এক নজরে দেখানোর চেষ্টা করব।

ফেসবুক ব্যবহারে সুফলঃ

  • বিনামলে চ্যাটিং করার সুবিধা।
  • ভিডিও সেটিং এর মাধ্যমে অনেক ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ তৈরি করা।
  • নতুন নতুন ছবি ও ভিডিও আপলোড করার সুবিধা।
  • মনোরঞ্জন করা বা মনের আনন্দ দেওয়া।
  • পুরনো বন্ধুদের খুঁজে পাওয়া।
  • নতুন নতুন ইনফরমেশন দেওয়া ও নেওয়া।
  • অতীতের মেমোরি বা অতীত থেকে আরেকবার দেখে নেওয়া।
  • নিজেকে আপডেট রাখা যায়।
  • বিভিন্ন ফিচার এর মাধ্যমে চ্যাট করার সুবিধা।
  • নিজের বাচ্চাকে প্রতিষ্ঠা করা।
  • অনলাইনে ব্যবসা তৈরি করে সুফল পাওয়া।
  • নিজের গ্রুপ এবং পেজ বানানো।
  • ইতালি ইত্যাদি।

ফেসবুক ব্যবহার এর কুফলঃ

  • নিজের প্রাইভেসি এবং সিকিউরিটি নষ্ট করা।
  • স্বাস্থ্য এবং শরীরের ক্ষতি করা।
  • মানুষের দুশ্চিন্তা এবং চাপ সৃষ্টি করা।
  • লাইক কমেন্ট পাওয়ার আসক্তি বেড়ে যাওয়া।
  • মূল্যবান সময় নষ্ট করা।
  • ফেক ফেইসবুক অ্যাকাউন্টের সাথে যোগাযোগ করে নিজের ব্যক্তিগত ইনফরমেশন দেওয়া।
  • পরিবার পরিজনদের থেকে দূরে সরে যাওয়া।
  • দুনিয়াকে সত্যিকারে দুনিয়া পাওয়া
  • ভার্চুয়াল দুনিয়াকে সত্যিকারে দুনিয়া ভাবা।
  • ইত্যাদি।

ফেসবুক ব্যবহারের উপকারিতাওঅপকারিতা।

বর্তমানে আজকে আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা গুলি সম্পর্কে জানতে পারলেন আপনি যদিও ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন তাহলে ফেসবুকে সুবিধা এবং অসুবিধা আপনার জানা একান্ত প্রয়োজনীয়।

আরো পড়ুনঃ মোবাইল দিয়ে ভালো ছবি তোলার উপায় জানুন।

এর মাধ্যমে আপনি সহজে বুঝতে পারছেন যে ফেসবুক ব্যবহার করা কোন পক্ষে উচিত কি না অনুচিত। তাই ফেসবুক ব্যবহারের উপকারিতা এবং অপকারিতা এবং এর সুফল কুফল জেনে নেয়ার সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

সর্বশেষ কথাঃ ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা

facebook আমরা বিভিন্ন ধরনের ফেসবুকে তথ্য এবং ইনফরমেশন পেয়ে থাকি। সেই সাথে এর সুবিধা এবং অসুবিধা ফেসবুক কাকে বলে এর সম্পর্কেও কিছু তথ্য জানতে পেরেছেন না হলে আজকের পর থেকে আপনারা ফেসবুক ব্যবহার করা উচিত বা অনুচ্ছেদ এটি নির্ণয় করতে পারবেন।

আশাকরি আপনি ওপরে ইনফরমেশন থেকে কিছুটা হলেও ফেসবুক সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য এবংফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা পেয়েছেন। আপনার যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে পোস্টটি একটি শেয়ার এবং কমেন্ট করে জানাবেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0মন্তব্যসমূহ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)

#buttons=(Ok, Go it!) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Check Now
Ok, Go it!