ইজি খবর https://www.easykhobor.com/2023/01/blog-post.html

জমির রেকর্ড সংশোধন করার নিয়ম? আরএস সংশোধন


বন্ধুরা জমির রেকর্ড সংশোধন করতে হলে জমির খতিয়ান সংশোধন কে বোঝায়। খতিয়ান বা পর্চা রেকর্ড কার নামে থাকবে সে জমির মালিক হয়ে যায় না। C.S সি এস রেকর্ড সংশোধন, S. A এস এ রেকর্ড সংশোধন , R. S আরএস সংশোধন, B. বিএস রেকর্ড সংশোধন, City সিটির জরিপ সংশোধন কোন ভুল পরিলক্ষিত হয়।

তবে ইচ্ছাকৃতভাবে কেউ যদি ভুল রেকর্ড তৈরি করে নেয় তবে তা কিভাবে আপনি সংশোধন করবেন। সেটি নিয়ে আজকে আলোচনা করব। ২০ থেকে ২৫ বছর পর পর ভূমি জরিপ এর মাধ্যমে জমির রেকর্ড তৈরি করা হয় বলে জানা গেছে। এগুলো ভুল পরিলক্ষিত হলে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট উপস্থাপনের মাধ্যমে আপনার জমি রেকর্ড সংশোধন করতে পারবেন।

সূচিপত্রঃ জমির রেকর্ড সংশোধন

ভূমি রেকর্ড কি?

নিজের জমি রেকর্ড করার নিয়ম?

জমির রেকর্ড এ পদ্ধতি হলো

খতিয়ান সংশোধন করতে কি কি কাগজপত্র লাগে?

খতিয়ান ভুল সংশোধন করার নিয়ম?


 আরো পড়ুনঃ   বি আর এস খতিয়ান নাম পত্তন কিভাবে করবেন।

ভূমি রেকর্ড কি?

সরো জমিনে জরিপ অনুষ্ঠিত হওয়ার পর জমির রেকর্ড তৈরির প্রস্তুতি মূলক। খসড়া গ্রাম মোজা মানচিত্র হল ভূমির রেকর্ডের ভিত্তি। এ মৌজায় ম্যাপ বা মানচিত্র প্রণয়নকে কিশ্তওয়ার বলা হয়। এ মানচিত্র সাধারন তো ১৬ ইঞ্চি= ১ এক মাইল স্কেলে পূরণ করা হয়।

আরো পড়ুনঃ  ২০২৩ কলেজ ও বিএম কলেজ ভর্তি 

প্রথমে রেকর্ড তৈরি প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করা হয় এবং প্রাকৃত অবস্থায় দেখে প্লটের ও প্লট ভিত্তিতে একে খানাপুরি বলা হয়। এতে জমির মালিকানা আয়তন জমির ও জমির শ্রেণী মালিকানায় অংশীদারী বিবরণ এ অবস্থা থাকে যা আর এগুলো খসড়া নামে একটি তালিকা দেখানো হয়।

নিজের জমি রেকর্ড করার নিয়ম?

সরকারি অফিসের দেশে প্রতিটা গ্রামের নির্দিষ্ট এলাকার জমির মোট জমির পরিমাণ ও মাপ বা মানচিত্র পাওয়া যাবে। তাই দেশে জমির রেকর্ড এর পরিমাণ মোটামুটি ভাবে নির্দিষ্ট বলা যায়। সেজন্য জমি খোঁজ করলে জমির মালিকানা অতীতে কার ছিল তা জানা যায়।

অর্থাৎ জমি হাত বদল হওয়া চিত্রটি জানা যায়। ভূমি ও জমির সংস্করণ আইনে রেকর্ড অফ রাইটসের তৈরির পদ্ধতি কথা বলা হয়েছে।

জমির রেকর্ড এ পদ্ধতি হলো। Land Record of Rights

ট্রাবার্স সার্ভে, ক্যাডাস্ট্রাল  সার্ভে, খানাপুরি, বোঝারথ, হস্তিক তসদিক, আর ও আর প্রস্তুতি, অভিযোগ সংক্রান্তি নিষ্পত্তি, ফাইল রেকর্ড প্রভৃতি ও তার নব প্রকাশনা। সাধারণ লোকের জন্য ট্রাবার্স সার্ভে ও ক্যাস্টেল সার্ভার প্রয়োজন না হলেও সরকারি ক্ষেত্রে দুই ধরনের সার্ভের প্রয়োজন হয়।

আরো পড়ুনঃ   ই-পর্চা কি?

সরকারি রেকর্ড অফ রাইটসের পরিমাণ চা দেখানো আছে খতিয়ানে হোক কিংবা দাগ নাম্বারে হয়েছে জমির পরিমাণ নিশ্চিত হওয়ার জন্য নির্বাচিত সময় অনুযায়ী জমির জরিপ করানো প্রয়োজন। যাতে জমি ক্রয় করার পর জমির পরিমাণ ও সীমানা রেখা নিয়ে যাতে ভবিষ্যতে বিবাদ না হয়। জমের দাগ টিন কোন বা চারকোণ হতে পারে।

রেকর্ড অফ রাইটস কে সরকারি দলিল হিসেবে গণ্য করতে হবে। রেকর্ড অফ রাইটস অফ সার্টিফাইড কপিতে পর্চা বলে। এরপর যাকে বাংলায় বলা যেতে পারে স্বত্ব লিপি। মূল দলের বিনষ্ট হলেও এর সার্টিফাইড কপি যথাস্থানের দাখিল করা যেতে পারে তাই এই সার্টিফিকেট কপি আদালতের কাছে গ্রহণযোগ্য। সুতরাং সুরক্ষা ও নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক জমির মালিক কে তার জমির রেকর্ড অফ রাইটস নথিভুক্ত করা অবশ্য।

খতিয়ান সংশোধন করতে কি কি কাগজপত্র লাগে?

একটি জমির রেকর্ড সংশোধন করতে চান সে জমির মালিকানার সকল দলিল পত্র।যেমনঃ

আরো পড়ুনঃ   অনলাইনে জমির খতিয়ান বের করার নিয়ম।

  • মূল দলিলের সার্টিফাইড কপি, বায়া দলিল, পূর্বের খতিয়ানের কপি ইত্যাদি সংগ্রহ করতে হবে।
  • চূড়ান্তভাবে প্রকাশিত ভুল রেকর্ড এর সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ করতে হবে।
  • জাতীয় পরিচয় পত্র বা এনআইডি কার্ড এর ফটোকপি দিতে হবে।

মনে রাখবেন খতিয়ান হচ্ছে দলিলে প্রামাণ্য দলিল, মালিকানা দলিল নয় খতিয়ানের মালিক ছাড়া অন্য কারো নাম অন্তর্ভুক্ত হয়ে গেলে যেমন সে ব্যক্তির মালিকানা সৃষ্টি হয় না তেমনি প্রাকৃত মালিকের মালিকানার সত্বেও নষ্ট হয় না শুধু মাত্র স্বত্বের কালিমা লিপ্ত হয়।

খতিয়ান ভুল সংশোধন করার নিয়ম?

ভূমি মন্ত্রণালয় এর অধীনে খতিয়ান ভুল সংশোধন করার নিয়ম এর আইন শাখা ০১ এর গত ২৩ শে সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে আইন শাখাকে প্রচলিত পরিপত্রে চূড়ান্তভাবে প্রকাশিত রেকর্ড বা খতিয়ান ভুল সংশোধনের জন্য তিন ধরনের কর্তৃপক্ষের কথা বলা হয়েছে।

সরকারি কমিশনার ভূমি কর্তৃক বিবেচনাযোগ্য করণিক ভুলের মধ্যে নামের ফুল অংশ বসানোর হিসাব ভুল দাগ সুচিতে ফুল মাপের সঙ্গে রেকর্ডের ভুল জরিপ কালে পিতার মৃত্যুর কারণে সন্তানের নামের সম্পত্তি রেকর্ড হওয়ার কথা থাকলেও জরিপকালে তাদের ভুল বা অজ্ঞাত কারণে তার মূল প্রজাপতি তার নাম রেকর্ড হওয়া ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

আরো পড়ুনঃ   খতিয়ান অনুসন্ধান কি?

একইভাবে প্রতারণামূলক লিখনের মাধ্যমে সৃষ্টি চূড়ান্তভাবে প্রকাশিত রেকর্ড সংশোধন জন্য প্রাপ্ত আবেদন অথবা প্রতিবেদন পরিপ্রেক্ষিতে রাজস্ব কর্মকর্তা প্রজা সত্য বিধিমালা ১৯৫৫ এর বিধি ২৩ এর উপবিধি ৪ অনুযায়ী রেকর্ড সংশোধনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

দি স্টেট একুইয়েশন এন্ড ট্রেনেরসি এক্ট ১৯৫০ এর ১৪৯ ধারার (৪)চার উপধারা মতে বর্ডার অফ ল্যান্ড এডমিনিস্ট্রেশন যেকোনো সময় যেকোনো ক্ষতিয়ানের বা চূড়ান্তভাবে প্রকাশিত সেটেলমেন্ট রেন্ট রোলের অন্তর্ভুক্ত যথার্থ ভুল সংশোধন আদেশ দিতে পারেন। কিন্তু বর্ডার অফ ল্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বর্তমান বিলুপ্ত বিধায় এ ক্ষমতা সরকারের পাশাপাশি ভূমি আপেল বোর্ডে রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ   মোবাইল দিয়ে ভূমি সেবা।

ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইবুনাল সর্বশেষ জরিপে প্রকাশিত খতিয়ানের শেষ বিষয়ের যে কোন আদেশ প্রদানে এখতিয়ারে।জরিপ পরবর্তী সত্য লিপি গ্যাজেট চূড়ান্ত প্রকাশনার পর কোন সংশোধনের দাবি থাকলে তার ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইবুনাল ল্যান্ড সার্ভে আপিল ট্রাইবুনাল এবং মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আপেল বিভাগের অর্থাৎ আপনার খতিয়ানের যেকোনো ধরনের ভুল হোক না কেন ভুলের ধরন অনুসারে উপরি উক্ত তিন ভাবেই সংশোধন সম্ভব।

More read>>> 

সর্বশেষ কথাঃ রেকর্ড সংশোধন

রেকর্ড সংশোধন এস এ রেকর্ড সংশোধন আরএস রেকর্ড সংশোধন বিএস রেকর্ড সংশোধন সিটির জরিপ।খতিয়ান ভুল সংশোধন করার নিয়ম? সরকারি অফিসের দেশে প্রতিটা গ্রামের নির্দিষ্ট এলাকার জমির মোট জমির পরিমাণ ও মাপ বা মানচিত্র পাওয়া যাবে।

আরো পোস্ট দেখুন

পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

1 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?